আজ ৭ জুলাই, ২০২০ || ২৩ আষাঢ়, ১৪২৭

শিরোনাম
  আনোয়ারায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক নারীর মৃত্যু       ১৫ আনসার ব্যাটালিয়ন অধিনায়কের পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আইসোলেশন সেন্টার পরিদর্শন ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরন       পটিয়ায় মাচা পদ্ধতিতে ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগল পালন প্রকল্পে উপকরণ বিতরণ স্বল্প আয়ের মানুষদের উৎসাহিত করতে হবে: হুইপ সামশুল হক চৌধুরী       পটিয়ায় কৃষি অফিসের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন       ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা কিশোরী, ৯ মাস পর মামলা       আল্লামা নঈমীর মৃত্যুতে চন্দনাইশ উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল জব্বারের চৌধুরীর শোক       পটিয়া পৌরসভা ছাত্রলীগের (প্রবীণ নবীন) এর পরিচালনায় চালু হয়েছে ‘অক্সিজেন টিম সাপোর্ট পটিয়া’।       চন্দনাইশে অসচ্ছল ২ জন সংস্কৃতিসেবীকে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে অনুদানের চেক বিতরণ       চন্দনাইশে ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৬৯ জন নন-এমপিও শিক্ষক ও ১৯ জন কর্মচারী প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের চেক পেল       আল্লামা মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী’র মৃত্যুতে যুবলীগ নেতা হোসাইন রনির শোক    


বাংলাদেশের এক-দশমাংশ অঞ্চল নিয়ে গঠিত পার্বত্য চট্টগ্রাম। ভৌগোলিক কারণে এতোদাঞ্চলের রাজনীতি, অর্থনীতি ও সংস্কৃতি বৈচিত্র্যের সাতকাহনে পরিপূর্ণ। এখানে যেমন রয়েছে উপজাতি জনগোষ্ঠির ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ১৪টি নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠী তেমনি রয়েছে মূল জনগোষ্ঠী বাঙালিদের বসবাস।
শতকরা পঞ্চান্ন ভাগ বাঙালি ও চোদ্দটি অবাঙালি ক্ষুদ্র-নৃ-গোষ্ঠীর এই পার্বত্য চট্টগ্রামের রাজনৈতিক সমীকরণ বরাবরের মতোই জটিল ও দুর্বোধ্য।
অভ্যন্তরিণ রাজনীতি ও অন্তর্জাতিক হস্তক্ষেপের কারণে এই অঞ্চলের সমগ্র জনগোষ্ঠী কয়েকটি অংশে বিভক্ত হয়ে অাছে।
যেহেতু পার্বত্য চট্টগ্রামের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট সম্পূর্ণ ভিন্ন সুতরাং রাজনৈতিক এজেন্ডাও এখানে ভিন্ন।

উপজাতি জনগোষ্ঠীর লোকেরা যেমন ভিন্ন ভিন্ন মতাদর্শে ও ভিন্ন ভিন্ন অান্তর্জাতিক গোষ্ঠীর মদদে উগ্রপন্থা অবলম্বন করছে তেমনি বাঙালি জনগোষ্ঠীর লোকেরাও একাধিক সংগঠনের মাধ্যমে বিচ্ছিন্নভাবে রাজনৈতিক কর্মসূচী পালন করে অাসছিলো।
মূলত অতিরিক্ত অধিকার প্রাপ্তি ও অধিকারহীনতার বিষয়টিই এই অঞ্চলের মূল রাজনৈতিক ইস্যু।
এখানে অধিকার প্রাপ্তির প্রশ্নে উপজাতি জনগোষ্ঠীর লোকেরা অনগ্রসরতা এবং সংখ্যালঘিষ্টতার অযুহাতে অতিরিক্ত ও অসাংবিধানিক সুবিধা ভোগ করছে পক্ষান্তরে বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর লোকেরা বেশির ভাগ ক্ষেত্রে বঞ্চিত হচ্ছে।
এটা সত্যি যে পার্বত্য চট্টগ্রাম শিক্ষা ও উন্নয়নের দিক থেকে অনেক পিছিয়ে আছে কিন্তু এটা সরকার কর্তৃক কিংবা দেশের অন্যান্য অঞ্চলের চাপিয়ে দেওয়া কোন দারিদ্রতা নয় বরঞ্চ এটা জাতীয় দূরাবস্থারই একটা অংশ। বাংলাদেশে যেমন অপর্যাপ্ত সম্পদের নহর বইছে না তেমনি বাঙালি জনগোষ্ঠীর লোকেরাও তা একা ভোগ করছে না। গুটিকয়েক শহরের ভাগ্যবান মানুষ যারা চাকচিক্যময় জীবন যাপন করছে তাদের বিষয়টা সম্পূর্ণ ভিন্ন কিন্তু সামগ্রিক ভাবে এইদেশ একটা দারিদ্র্য পীড়িত দেশ সুতরাং এটা মেনেই অামাদের জীবন যাপন করতে হবে। কিন্তু পাহাড়ের উপজাতি নেতারা এটা মানতে নারাজ। তাদের এই বাড়তি চাওয়াকে প্রাধান্য দিতে গিয়ে পাহাড়ের বাঙালি জনগোষ্ঠীকে বঞ্চিত করতে হচ্ছে। যদিও সরকার অনেক চেষ্টা করছে এই সমগ্র পার্বত্য অঞ্চলকে উন্নয়নের মাধ্যমে সমৃদ্ধ করতে সেখানেও উপজাতি নেতাদের বাঁধা রয়েছে। মলূত সামান্তবাদি রীতিনীতি ও প্রথা অনুযায়ী শাসন ব্যবস্থা চালু রেখে তারা এই অঞ্চলের রাজনৈতিক সুবিধা ভোগ করতে চায়।
এসব কারণেই এই অঞ্চলের রাজনৈতিক সঙ্কট প্রকট হয়ে অাছে।
বাঙালি জনগোষ্ঠীর দাবি হচ্ছে সমগ্র পার্বত্য চট্টগ্রামের সকল নাগরিকদের সমান সুযোগ নিশ্চিত করা। অার এ কারণেই তাদের দ্বারা সমঅধিকার ভিত্তিক অান্দোলন গুলো পালিত হয়ে অাসছে। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে তাদের এই অান্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে অাসার পরও যখন কার্যকর সাফল্য অাসছে না তখন এর কার্যকারণ খোঁজার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে এবং মূলত খন্ড খন্ড অংশে অান্দোলন কর্মসূচিই তাদের দাবি অাদায়ের অন্তরায় বলে প্রতিয়মান হয়। যদিও বেশ সময় অতিবাহিত হয়ে গিয়েছে তারপরও তাদের কয়েকজন নেতা ঐক্যমত সৃষ্টির ব্যাপারে জোরালো ভূমিকা নিয়ে মাঠে নেমে পড়েন এবং সমস্ত দলের নেতাদের সাথে দফায় দফায় বৈঠক করেন। ঐক্যবদ্ধ অান্দোলনের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে সকলকে সচেতন করার চেষ্টা করেন।
২০১৯ সালের ১৭ মার্চ বিভাগীয় শহর চট্টগ্রামে সকল সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের অংশগ্রহণে তাদের প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় কিন্তু নানা মত পার্থক্যের কারণে তখনো বিশেষ কোন রূপরেখা তৈরি করা সম্ভব হয়ে উঠেনি।
তারপর অারো কয়েক দফা বৈঠকের পরও যখন তারা কোন ঐক্যমতে পৌঁছাতে পারেনি তখন পার্বত্য চট্টগ্রামে বাঙালি অান্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ইন্জিনিয়ার অালকাছ অাল মামুন ভুইঁয়া ও বাঘাইছড়ি পৌরসভার সাবেক মেয়র জনাব অালমগির কবির এই সমস্যা সমাধানে এগিয়ে অাসেন।
সর্বশ্রেণী পেশার মানুষ ও দলের নিকট গ্রহণযোগ্যতা থাকার কারণে তারা অল্পদিনের মধ্যেই সমস্ত দলগুলোর সাথে বেশ কয়েকবার অালোচনার পর সর্বসম্মতিক্রমে একটা ঐক্যমত সৃষ্টি করতে সক্ষম হন।
এই দুই বয়োজ্যেষ্ঠ নেতা প্রধান সমন্বয়কের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়ে ২০১৯ সালের ১৩ ই নভেম্বর একটি রূপরেখা দাঁড় করাতে সক্ষম হন এবং ২২শে নভেম্বর সকলের সম্মতিতে তা চূড়ান্ত হয়।
৫ই ডিসেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে সমস্ত দলগুলো বিলুপ্ত ঘোষণা করে গঠিত হয় পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ। ৭ই ডিসেম্বর পুনরায় চট্টগ্রামে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে অনানুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হয়।
গঠিত হয় এর সহযোগী অঙ্গ সংগঠন পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা পরিষদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাত্র পরিষদ।
১২ ডিসেম্বর ২০১৯ রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানে একযোগে অানন্দ র্যালী ও শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। এর একমাস পরই ১৪ জানুয়ারি ২০২০ সালে চট্টগ্রামে ইন্জিনিয়ার অালকাছ অাল মামুন ভুইঁয়াকে চেয়ারম্যান ও জনাব অালমগির কবিরকে মহাসচিব করে একটি স্টিয়ারিং কমিটি গঠিত হয়।

২০২০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারী রাঙামাটি চেম্বার অফ কমার্সে অালকাছ অাল মামুনকে চেয়ারম্যান ও জনাব অালমগির কবিরকে মহাসচিব করে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের পুর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। সমগ্র পার্বত্য চট্টগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের মধ্যে বান্দরবান জেলা অাওয়ামিলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জনাব কাজী মুজিব, খাগড়াছড়ি পৌর কাউন্সিল এস এম মাসুম রানা, মাটিরাংগা উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান অানিসুজ্জামান ডালিম, মহিলা পরিষদের নেত্রী সালমা অাহমেদ মৌ, কাউন্সিলর অাব্দুল মজিদ, অধিকার ফোরামের সভাপতি মাইন উদ্দিন, অধ্যক্ষ অাবু তাহের প্রমুখ ব্যাক্তিবর্গ গুরুত্বপূর্ণ পদে মনোনীত হন।
দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও পার্বত্য চট্টগ্রামের অধিকার অাদায়ের রাজনৈতিক সংগঠন গুলো ঐক্যবদ্ধ ভাবে কোন ফলপ্রসূ অান্দোলন করতে পারেনি কিন্তু ২০১৯ সালের পর সমগ্র চিত্র পাল্টে যায়।
ঐক্যবদ্ধ অান্দোলন কর্মসূচি দারুণ ভাবে সাফল্য পেতে শুরু করে। পার্বত্য চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় সমস্যা ভূমি বিরোধ। এই ভূমি বিরোধ নিরসনের লক্ষ্যে গঠিত হয়েছিল বিতর্কিত “ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন”। পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ তাদের ঐক্যবদ্ধ অান্দোলনের মাধ্যমে এই কমিশনের বিতর্কিত কার্যক্রম বন্ধ করে দিতে সক্ষম হয়েছে। এই রাজনৈতিক সংগঠনের অারো অন্যান্য কার্যক্রমের মধ্যে করোনাকালে অসহায় দুস্থ মানুষের কাছে তাদের খাদ্য সামগ্রী পোঁছে দেওয়া অন্যতম। এই ত্রান কার্যক্রমের অাওতায় রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানের ১০ হাজারেরও বেশি অসহায় মানুষের কাছে ত্রান সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।
সুদীর্ঘকাল বিচ্ছিন্ন থাকা সংগঠন গুলো হঠাৎ এমন ঐক্যবদ্ধ অান্দোলন কর্মসূচি পালন করার পর দেশি বিদেশি সকল ষড়যন্ত্রকারীরা শঙ্কিত হয়ে পরে।
তাদের সকল ষড়যন্ত্র একে একে ব্যর্থ হতে থাকে অার পাহাড়ের রাজনৈতিক অঙ্গনে বইতে থাকে ঐক্যের সুবাতাস।
এই দুই নেতার দীর্ঘদিনের সাংগঠনিক অভিজ্ঞতা ও কারিশমাটিক নের্তৃত্বে সমগ্র পার্বত্য চট্টগ্রামের অধিকার বঞ্চিত জনগোষ্ঠী এখন ঐক্যবদ্ধ। সকলের নিকট পার্বত্য চট্টগ্রামের রাজনৈতিক ইতিহাসে এটি একটি যুগান্তকারী ঘটনা রূপে প্রতিভাত হয়।
এই ঐতিহাসিক ঘটনার সূত্রপাত হয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রামের অধিকার বঞ্চিত মানুষের অবিসংবাদিত নেতা জনাব অালকাছ অাল মামুন ভুইঁয়া ও জনাব অালমগির কবিরের মাধ্যমে। নিশ্চিতভাবেই পার্বত্য চট্টগ্রামের রাজনৈতিক ইতিহাসে এই দুই মহারথীর নাম লেখা থাকবে স্বর্ণাক্ষরে।

অাহাম্মদ রিদোয়ান
পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক লেখক ও গবেষক

ফেসবুক মন্তব্য করুন



আনোয়ারায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক নারীর মৃত্যু

১৫ আনসার ব্যাটালিয়ন অধিনায়কের পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আইসোলেশন সেন্টার পরিদর্শন ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরন

পটিয়ায় মাচা পদ্ধতিতে ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগল পালন প্রকল্পে উপকরণ বিতরণ স্বল্প আয়ের মানুষদের উৎসাহিত করতে হবে: হুইপ সামশুল হক চৌধুরী

পটিয়ায় কৃষি অফিসের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন

ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা কিশোরী, ৯ মাস পর মামলা

আল্লামা নঈমীর মৃত্যুতে চন্দনাইশ উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল জব্বারের চৌধুরীর শোক

পটিয়া পৌরসভা ছাত্রলীগের (প্রবীণ নবীন) এর পরিচালনায় চালু হয়েছে ‘অক্সিজেন টিম সাপোর্ট পটিয়া’।

চন্দনাইশে অসচ্ছল ২ জন সংস্কৃতিসেবীকে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে অনুদানের চেক বিতরণ

চন্দনাইশে ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৬৯ জন নন-এমপিও শিক্ষক ও ১৯ জন কর্মচারী প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের চেক পেল

আল্লামা মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী’র মৃত্যুতে যুবলীগ নেতা হোসাইন রনির শোক

চট্টগ্রাম রাঙ্গুনিয়ার অধিবাসী মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির ইবনে মোহাম্মদ

বাঁশখালীতে ১৪ বছরের মেয়েকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে পালাক্রমে ধর্ষন- ৪ ধর্ষক গ্রেপ্তার

সাতকানিয়ার এসএসসি পরীক্ষার্থী জান্নাতুল ফেরদৌসকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন

বাশঁখালীতে এস.এস.সি পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে ভুয়া শিক্ষক গ্রেপ্তার

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় ১৫ টি ঘরে আগুন

আগামী ৩ মাসের বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাস বিল মওকুফের দাবী বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের

দোহাজারী সাঙ্গু নদী থেকে আলম নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য মনোনীত হলেন সাংসদ নজরুল ইসলাম চৌধুরী

লবণের দাম বৃদ্ধির ‘গুজব’, বেশি দামে লবণ বিক্রি করায় চন্দনাইশে ৪ প্রতিষ্ঠানকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা

বাঁশখালীতে গণ ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি মজিদ বন্দুক যুদ্ধে নিহত